bicycle

বাইসাইকেল সম্পর্কে যে সব তথ্য আপনি নাও জানতে পারেন

  • প্রথম সাইকেল উৎপাদন হয় ফ্রান্সে। তবে বর্তমানে সাইকেলের যে ডিজাইনটা দেখা যায় সেটা বৃটেনের।
  • বাইসাইকেলে করে পুরো বিশ্ব ঘুরেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্রেড এ. বির্চমোর। প্রায় ৪০,০০০ মাইল ঘুরেছেন তিনি। সাইকেলের প্যাডেল মেরে ২৫,০০০ মাইল। বাকিটা নৌকায়।
  • নেদারল্যান্ডে মোট ট্রিপের ৩০ শতাংশ হয় বাইসাইকেলে। সে দেশে ১৫ বছরের বেশি বয়সীদের ৮ জনের মধ্যে ৭ জনের বাইসাইকেল আছে।
  • বিশ্বে প্রতি বছর প্রায় ১০০ মিলিয়ন সাইকেল উৎপাদিত হয়। সারা বিশ্বে এখন প্রায় ১ বিলিয়ন সাইকেল ব্যবহার হচ্ছে।
  • বাণিজ্যিকভাবে বিক্রিত প্রথম সাইকেলের নাম ছিলো ‘বোনসেকার’। ওজন ছিলো ৮০ কেজি!
  • প্রথম সাইকেল উৎপাদনের ১০০ বছর পর চীনে সাইকেল চালু হয়। আর আজকে সেখানে অর্ধ বিলিয়নেরও বেশি সাইকেল আছে!
  • ২০১১ সালে অস্ট্রিয়ার রেসিং সাইকেল চালক মার্কাস স্ট্যাকল তাঁর সাইকেলটি আগ্নেয়গিরির পাহাড়ের নিচে নামিয়েছিলেন। গতি ছিল ঘন্টায় ১৬৪.৯৫ কিলোমিটার।
  • একটি সাইকেলের রক্ষণাবেক্ষণ খরচ একটি কারের রক্ষণাবেক্ষণ খরচের ২০ গুণ কম। একটি কার উৎপাদনে যে শক্তি এবং সম্পদ ব্যয় হয়, তা দিয়ে ১০০টি সাইকেল উৎপাদন করা যায়।
  • আমেরিকায় কমপক্ষে ৪০০টি সাইকেল ক্লাব আছে!
  • ১৯৯০ থেকে ২০০৫ সালের মধ্যে নিউইয়র্কে মাত্র একটি বড় ধরনের সাইকেল দূর্ঘটনা হয়েছিল। ভুল করে সাইকেল চালক বাইকের লেনে ঢুকে গিয়েছিল।
  • সাইকেলের কারণে প্রতি বছর সারা পৃথিবীর প্রায় ২৩৮ মিলিয়ন গ্যাস বেঁচে যায়!

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।